রাউটার থেকে রাউটার সংযোগের সকল নিয়ম (ক্যাবল/ওয়্যারলেস)

রাউটার থেকে রাউটার সংযোগের সকল নিয়ম

ধরুন, আপনার পাশের বাসায় ব্রডব্যান্ড লাইন আছে, আপনি সেখান থেকে একটি অতিরিক্ত সংযোগ নিতে চাচ্ছেন। এখন কিভাবে নিবেন তার/ক্যাবল দিয়ে নাকি তার ছাড়া (ওয়্যারলেস) বুঝতে পারছেন না 

তাহলে এই পোষ্ট টি আপনার জন্য  (মেগা পোস্ট)

সাধারণত একটি মেইন লাইন থেকে নেয়া বাকি সকল সংযোগ গুলোকে বলা হয় সাব-লাইন/ সাব-কানেকশন

 সাব-লাইন/ সাব-কানেকশন দুইভাবে নেয়া যায়:

  • তার বা ক্যাবল দিয়ে (সর্বোচ্চ ১০০ মিটার)
  • তার বিহীন বা ওয়্যারলেস (যদি নেট ওয়ার্ক রেঞ্জ থাকে)

তার বা ক্যাবল কানেকশন

তার বা ক্যাবল কানেকশনের মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি একটি সংযোগ নিতে পারবেন

বিঃ দ্রঃ কোন ভাবেই তারের দৈর্ঘ্য ১০০ মিটারের বেশি হওয়া যাবে না

এজন্য আপনার  প্রয়োজন হবে:

  • Cat-5e অথবা Cat-6 ক্যাবল (UTP)
  • RJ45 দুইটি কানেক্টর

দামঃ Cat-5eCat-6 (UTP) ক্যাবল এর দাম সাধারনত (১০-১৪) টাকা মিটার এবং RJ45 দুইটি কানেক্টরের দাম ১০ টাকা

এখন তার বা ক্যাবল কানেকশন আবার দুই প্রকার:

  • LAN-WAN (ল্যান-ওয়েন) কানেকশন
  • LAN-LAN (ল্যান-ল্যান) কানেকশন

LAN-WAN (ল্যান-ওয়েন) কানেকশন 

lan to wan connection
lan to wan connection

এই কানেকশন পদ্ধতি অনেকটা সহজ। বুঝার সুবিধার জন্য ধরে নিই আমাদের প্রাইমারি বা মেইন রাউটার-A এবং সাব বা দ্বিতীয় রাউটার-B

ধারাবাহিক ধাপঃ

প্রথমে, আপনার দ্বিতীয় রাউটার অর্থাৎ রাউটার-B চালু (বিদ্যুৎ সংযোগ) করবেন [*আগেই তার/ক্যাবল লাগাবেন না]

চালু করার পর মোবাইলে/পিসিতে কানেক্ট করে ডিফল্ট আইপি এড্রেস 192.168.0.1 এ প্রবেশ করুন । 

**192.168.0.1 এই এড্রেস যদি কাজ না করে, তাহলে আপনার রাউটারের পিছনে লেখা বা ম্যানুয়েলে লেখা আইপি এড্রেস এ ভিজিট করুন

নাম ও পাসওয়ার্ড চাইলে উভয় ক্ষেত্রে admin লিখবেন, তারপর লগ ইন করুন

এখন, আপনার ওয়াই-ফাই এর ইউজার নাম ও পাসওয়ার্ড সেট করুন (*কানেকশন পাওয়ার পরে আর করা যাবে না)

এখন আপনার ক্যাবলের এক প্রান্ত রাউটার A-এর Lan পোর্টে এবং দ্বিতীয় প্রান্ত রাউটার B-এর Wan পোর্টে সংযোগ দিবেন (কানেক্ট করার আগে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখা ভাল)

আর কিছু করতে হবে না, কিছক্ষনের মধ্যে আপনার সংযোগে ইন্টারনেট চালু হয়ে যাবে

সুবিধাঃ 

  • কানেকশন পদ্ধতি খুব সহজ, রাউটার সেটআপের কোন ঝামেলা নেই

অসুবিধাঃ 

  • আপনার রাউটারে কত জন কানেক্ট আছে দেখতে পারবেন না, তবে এন্ড্রইড এপ ব্যবহার করে দেখতে পারবেন। যেমন: Wi-Fi Fing
  • এক্ষেত্রে একবার কানেকশন চালু হলে পরবর্তিতে আর আপনার রাউটারে কোন কিছু পরিবর্তন  করতে পারবেন না
  • পরিবর্তন করতে চাইলে, রাউটার রিসেট দিয়ে পুনরায় আগের নিয়ম অনুসরণ করতে হবে

LAN-LAN (ল্যান-ল্যান) কানেকশন

lan to lan connection
lan to lan connection

এই কানেকশন পদ্ধতি কিছুটা জটিল। এজন্য আপনাকে রাউটারের বেশ কিছু সেটিংস পরিবর্তন করতে হবে, তবে সুবিধা বেশি পাবেন

ধারাবাহিক ধাপঃ

আমাদের মেইন রাউটার A – তে কিছু করতে হবে না, দ্বিতীয় রাউটার এ বেশ কিছু সেটিংস পরিবর্তন করতে হবে

প্রথমে, আপনার দ্বিতীয় রাউটার অর্থাৎ রাউটার-B চালু (বিদ্যুৎ সংযোগ) করবেন [*আগেই তার/ক্যাবল লাগাবেন না]

চালু করার পর মোবাইলে/পিসিতে কানেক্ট করে ডিফল্ট আইপি এড্রেস 192.168.0.1 এ প্রবেশ করুন

**192.168.0.1 এই এড্রেস যদি কাজ না করে, তাহলে আপনার রাউটারের পিছনে লেখা বা ম্যানুয়েলে লেখা আইপি এড্রেস এ ভিজিট করুন

নাম ও পাসওয়ার্ড চাইলে উভয় ক্ষেত্রে admin লিখবেন, তারপর লগ ইন করুন

এখন, আপনার ওয়াই-ফাই এর ইউজার নাম ও পাসওয়ার্ড সেট করবেন (*কানেকশন পাওয়ার পরেও পরিবর্তন করতে পারবেন)

রাউটার রিস্টার্ট হবে। পুনরায় কানেক্ট করুন

তারপর ল্যান সেটিং (Lan Setting) এ আপনার আইপি এড্রেস পরিবর্তন করতে হবে। যেমনঃ আগে ছিল 192.168.0.1 এটা

এখন নতুন আইপি এড্রেস হিসেবে আমরা 192.168.0.2 নিলাম (আপনার ইচ্ছা মত যেকোন সংখ্যা দিবেন শেষের 1 এর পরিবর্তে)। 
(যদি একসাথে থাকে,তাহলে আগেই DHCP server ডিজেবল করবেন না)

রাউটার থেকে রাউটার সংযোগের সকল নিয়ম (ক্যাবল/ওয়্যারলেস)

তারপর সেভ দিবেন। রাউটার রিস্টার্ট হবে, সেভ করার পর খোজে বের করুন DHCP অপশন

এটা অনেক রাউটার এ আলাদাভাবে থাকে আবার অনেক সময় এডভান্স সেটিং (Advance Setting) বা ল্যান সেটিং (Lan Setting) এ থাকে। তারপর DHCP অপশনে এটা ডিজেবল (Disable) বা আনচেক করে দিন

এখন, আপনার ক্যাবলের এক প্রান্ত রাউটার A-এর Lan পোর্টে এবং দ্বিতীয় প্রান্ত রাউটার B-এর Lan পোর্টে সংযোগ দিবেন (কানেক্ট করার আগে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখা ভাল)

আপনার কাজ শেষ। কিছুক্ষনের মধ্যে ইন্টারনেট চালু হয়ে যাবে।

সুবিধাঃ 

  • এক্ষেত্রে কানেকশন চালু হলে পরবর্তিতে যেকোন সময় রাউটারের সকল তথ্য পরিবর্তন করতে পারবেন (আপনার নতুন আইপি এড্রেস 192.168.0.2 এ প্রবেশ করে)
  • আপনার রাউটারে কত জন কানেক্ট আছে দেখতে পারবেন
  • এমনকি মেইন রাউটারেও প্রবেশ করতে পারবেন, তথ্যও পরিবর্তন করতে পারবেন (192.168.0.1 এই এড্রেসে)

অসুবিধাঃ 

  • ল্যান টু ল্যান কানেকশন পদ্ধতি কিছুটা জটিল

তার বিহীন/ওয়্যারলেস কানেকশন

Rauter to Rauter wireless
Rauter to Rauter wireless

আপনার পাশের বাসায় ব্রডব্যান্ড লাইনের রেঞ্জ যদি আপনার বাসা পর্যন্ত আসে তাহলে আপনি কোন তার ছাড়াই সংযোগ নিতে পারবেন। এই পদ্বতি প্রায়  ল্যান-ল্যান (Lan-Lan) কানেকশন এর মত

ধারাবাহিক ধাপঃ

আমাদের মেইন রাউটার A -তে কিছু করতে হবে না, দ্বিতীয় রাউটার শুধু পরিবর্তন করতে হবে

প্রথমে, আপনার দ্বিতীয় রাউটার অর্থাৎ রাউটার-B চালু (বিদ্যুৎ সংযোগ) করবেন। চালু করার পর মোবাইলে/পিসিতে কানেক্ট করে ডিফল্ট আইপি এড্রেস 192.168.0.1 এ প্রবেশ করুন

**192.168.0.1 এই এড্রেস যদি কাজ না করে, তাহলে আপনার রাউটারের পিছনে লেখা বা ম্যানুয়েলে লেখা আইপি এড্রেস এ ভিজিট করুন

নাম ও পাসওয়ার্ড চাইলে উভয় ক্ষেত্রে admin লিখবেন, তারপর লগ ইন করুন

এখন, আপনার ওয়াই-ফাই এর ইউজার নাম ও পাসওয়ার্ড সেট করবেন (*কানেকশন পাওয়ার পরে আর করা যাবে না)

রাউটার রিস্টার্ট হবে। পুনরায় কানেক্ট করুন, তারপর ল্যান সেটিং (Lan Setting) এ আপনার আইপি এড্রেস পরিবর্তন করুন। যেমনঃ আগে ছিল 192.168.0.1 এটা

এখন নতুন আইপি এড্রেস হিসেবে আমরা 192.168.0.2 অথবা 192.168.0.3 নিলাম (আপনার ইচ্ছা মত যেকোন সংখ্যা দিবেন শেষের 1 এর পরিবর্তে)। (**যদি DHCP অপশন একসাথে থাকে,তাহলে আগেই DHCP server ডিজেবল করবেন না)

তারপর সেভ দিবেন। রাউটার রিস্টার্ট হবে

এখন, ওয়্যারলেস ব্রিজ/ওয়্যারলেস কানেক্টশন (Wireless Repeating) অপশনে যান। এখানে যাওয়ার পর দেখবেন, আপনার নিকট বর্তী সকল কানেকশন গুলো দেখা যাচ্ছে

তারপর আপনার পাশের বাসার কানেকশন টি সিলেক্ট করুন এবং পাসওয়ার্ড দিন, ওকে করুন

রাউটার থেকে রাউটার সংযোগের সকল নিয়ম (ক্যাবল/ওয়্যারলেস)

সেভ করার পর খোজে বের করুন DHCP অপশন (ল্যান-ল্যান এর ছবিতে দেখুন)

এটা অনেক রাউটার এ আলাদাভাবে থাকে আবার অনেক সময় এডভান্স সেটিং/ ল্যান সেটিং এ থাকে। তারপর DHCP অপশনে এটা ডিজেবল/আন চেক করে দিন। কাজ শেষ, এখন অটোমেটিক কানেক্ট হয়ে যাবে

সুবিধাঃ 

  • তার/ক্যাবল সেটআপের কোন ঝামেলা নেই
  • খরচ কম, শুধু রাউটার কিনলেই হবে

অসুবিধাঃ 

  • এই কানেকশন পদ্ধতি কিছুটা জটিল
  • আপনার রাউটারে কত জন কানেক্ট আছে দেখতে পারবেন না, তবে এন্ড্রইড এপ ব্যবহার করে দেখতে পারবেন, তবে ব্লক করা বা অন্যান্য সুবিধা পাবেন না। যেমন: Wi-Fi Fing
  • এক্ষেত্রে একবার কানেকশন চালু হলে পরবর্তিতে আর আপনার রাউটারে কোন কিছু পরিবর্তন  করতে পারবেন না
  • তথ্য পরিবর্তন করতে চাইলে, রাউটার রিসেট দিয়ে পুনরায় আগের নিয়ম অনুসরণ করতে হবে
  • মেইন রাউটারের তুলনায় অনেক কম স্পিড পাবেন

এই ছিলো রাউটার থেকে রাউটার সংযোগের সকল বিষয়বস্তু

পোস্ট সম্পর্কে কোন প্রশ্ন বা জিজ্ঞাসা থাকলে কমেন্টে জানাবেন। ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না

Leave a Comment