নৌপরিবহন অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১

নৌপরিবহন অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ঃ নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ নৌপরিবহন অধিদপ্তরের নিম্নবর্ণিত শূণ্যপদে সম্পূর্ণ অস্থায়ী ভিত্তিতে বছর ভিত্তিক চুক্তিতে নিয়োগের জন্য বাংলাদেশের স্থায়ী নাগরিকদের নিকট হতে নিম্নবর্ণিত শর্ত সাপেক্ষ অনলাইনে আবেদন আহবান করা যাচ্ছে।

নৌপরিবহন অধিদপ্তর নিয়োগ ২০২১

চাকরির ধরনসরকারি চাকরি
জেলাসকল জেলা
ওয়েবসাইটdos.gov.bd
মোট পদ২ টি
পদের সংখ্যা২ জন
বয়স১৮-৩০ বছর
শিক্ষাগত যোগ্যতাএসএসসি-এইচএসসি
আবেদনের সময়সীমা২২ জুলাই, ২০২১
আবেদনের মাধ্যমঅনলাইন (লিংক নিচে)
এক নজরে দেখে নিনঃ চলমান সরকারি চাকরির বিজ্ঞপ্তির তালিকা

নৌপরিবহন অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১

শূণ্যপদঃ অফিস সহকারি কাম-কম্পিউটার অপারেটর
পদের সংখ্যাঃ ০১ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ উচ্চ মধামিক বা সমমানের শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং কম্পিউটারে দক্ষতা। কম্পিউটার কম্পোজে প্রতি মিনিটে গতি ইংরেজীতে ৪৫ এবং বাংলায় ৩০ শব্দ
বেতনঃ ১৭,৩৪৫ টাকা

শূণ্যপদঃ অফিস সহায়ক
পদের সংখ্যাঃ ০১ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ এসএসসি পাশ এবং অবশ্যই শারীরিক যোগ্যতা থাকতে হবে
বেতনঃ ১৫,৮৫০ টাকা

  • আবেদন প্রক্রিয়া শুরুঃ ২৩ জুন, ২০২১
  • আবেদনের শেষ তারিখঃ ২২ জুলাই, ২০২১
নৌপরিবহন অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১
নৌপরিবহন অধিদপ্তর নতুন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

আরো দেখুন-

প্রয়োজনীয় শর্তাবলী

চাকুরীর জন্য আবেদন ফরম প্রার্থী কর্তৃক নৌ-পরিবহন অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে প্রদত্ত অভ্যন্তরীণ ই-সেবাসমূহ এর নিচে “নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি” ঠিকানার মাধ্যমে অনলাইন আবেদন করতে হবে। অন লাইনের মাধ্যমে আবেদন শুরুর তারিখ ২৩/০৬/২০২১ এবং আবেদনের শেষ তারিখ ২২/০৭/২০২১।

সাধারণ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে  ২৩-০৬-২০২১ তারিখে বয়স সর্বনিম্ন ১৮ বছর এবং সর্বোচ্চ ৩০ বছরের মধ্যে হতে হবে (বীর মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পুত্র-কন্যা এবং শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উক্ত তারিখ অনুসারে বয়সসীমা ৩২ বছর পর্যন্ত)। বয়স গণনার ক্ষেত্রে এফিডেভিট গ্রহণ যোগ্য নয়।

বীর মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পুত্র-কন্যার পুত্র-কন্যাদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা ৩০ বছর পর্যন্ত। সরকারী, আধা-সরকারী ও স্বায়ত্ত-শাসিত প্রতিষ্ঠানে চাকরিরত প্রার্থীদের অবশ্যই যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতিক্রমে আবেদন করতে হবে। মৌখিক পরীক্ষার সময় সংশ্লিষ্ট নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত ছাড়পত্রের মূলকপি জমা দিতে হবে।

আবেদনের সাথে প্রার্থীর সদ্য তোলা রঙ্গিন ছবি (৩০০ x ৩০০ পিক্সেল, ১০০ কিলো বাইট এর মধ্যে) ও প্রার্থীর স্বাক্ষর (৩০০ x ৮০ পিক্সেল, ৬০ কিলো বাইট এর মধ্যে) যুক্ত করতে হবে এবং স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/সিটি কর্পেকরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর/পৌরসভার মেয়র/কাউন্সিলর কর্তৃক প্রদত্ত নাগরিকত্ব ও প্রথম শ্রেনীর গেজেটেড কর্মকর্তা প্রদত্ত চারিত্রিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা কোটার ক্ষেত্রে বীর মুক্তিযোদ্ধা/বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যা/বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্র/কন্যার পুত্র-কন্যা (প্রযোজ্যক্ষেত্রে) সনদপত্র স্ক্যান করে সংযুক্ত করতে হবে।

মৌখিক পরীক্ষার সময় অনলাইনে পূরণকৃত আবেদন পত্র, প্রবেশ পত্র এর প্রিন্ট কপি (রঙ্গিন) এবং আবেদনের সাথে দাখিলকৃত শিক্ষাগত যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা, জাতীয় পরিচয়পত্র, জেলার স্থায়ী বাসিন্দার প্রত্যয়নপত্র ও আবেদনকারী বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যা হলে আবেদনকারী যে, বীর মুক্তিযোদ্ধার/শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধার পুত্র-কন্যার পুত্র-কন্যা এ মর্মে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/সিটি কর্পেকরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর/পৌরসভার মেয়র/কাউন্সিলর কর্তৃক প্রদত্ত সনদের মূল কপিসহ সত্যায়িত এক সেট ফটোকপি প্রদর্শন/দাখিল করতে হবে।

প্রার্থী কর্তৃক প্রদত্ত কোন তথ্য বা দাখিলকৃত কাগজপত্র জাল, মিথ্যা বা বিজ্ঞপ্তিতে চাওয়া নূন্যতম শর্তের সাথে গরমিল/অসামঞ্জস্য পাওয়া গেলে/ভূয়া প্রমাণিত হলে কিংবা পরীক্ষায় নকল/অসদুপায় অবলম্বন করলে সংশ্লিষ্ট প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল করা হবে এবং তার বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ভুল তথ্য/কাগজপত্র প্রদর্শিত হলে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ যেকোন প্রার্থীর প্রার্থিতা পরীক্ষা চলাকালীন অথবা পরবর্তীতে যেকোন সময়ে বাতিল করার ক্ষমতা কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করেন।

আবেদনকারীকে তার সর্বশেষ অর্জিত শিক্ষাগত যোগ্যতার তথ্য আবশ্যিকভাবে উল্লেখ করতে হবে। অনলাইনের নির্দেশ মোতাবেক শর্তাবলী অসম্পূর্ণ/অপূর্ণ থাকলে আবেদপত্র অনলাইনে গৃহীত হবে না। কোটা সম্পর্কিত সরকারী প্রচলিত নীতিমালা এবং নিয়োগ সংক্রান্ত অন্যান্য সরকারি বিধিবিধান যথাযথভাবে অনুসরণ করা হবে।

পরবর্তী যোগাযোগের জন্য আবেদনকারীর বর্তমান/ পত্র যোগাযোগের ঠিকানা, মোবাইল নম্বর আবেদন পত্রে যথাযথ ভাবে পূরণ করতে হবে। পরবর্তী সকল যোগাযোগ (নির্বাচন পরীক্ষার তথ্যাবলী) মোবাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে প্রার্থীকে জানানো হবে। তাই আবেদন পত্রে দেওয়া উক্ত নম্বরটি সার্বক্ষনিক সচল রাখার জন্য অনুরোধ করা হল।

অনলাইনে আবেদন পত্র যথাযথ ভাবে পূরণ করে নির্দেশনা মোতাবেক ছবি ও স্বাক্ষর আপলোড করে আবেদন পত্র নিশ্চিত করে আবেদন সম্পন্ন করার পর আবেদনকারীর ছবি ও স্বাক্ষর সম্বলিত আবেদনের কপি সংরক্ষণ করে রাখা যাবে এবং উপরে দেওয়া ‘ফি প্রদান’ মেন্যু থেকে প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিয়ে অনলাইন পেমেন্ট পদ্ধতি (নগদ, বিকাশ, রকেট, অন্যান্য ব্যাংক পেমেন্ট) এর মাধ্যমে ফি জমা দিতে হবে।

এছাড়াও আবেদনকারী চাইলে আবেদন করার পরেও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নৌ-পরিবহন অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে প্রদত্ত ‘আভ্যন্তরীণ ই-সেবাসমূহ’ এর নিচে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি লিংকে দেওয়া অনলাইন সফটওয়্যারের ‘ফি প্রদান’ মেন্যুতে গিয়ে প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিয়ে ফি জমা দিতে পারবে। ১নং আবেদনকারীদের ১০০/- (একশত) টাকা এর সাথে সার্ভিস চার্জ বাবদ ফি এর ১০% হারে ১১০/- টাকা এবং অফিস সহায়ক পদের আবেদনকারীকে ৫০/- (পঞ্চাশ) টাকা এর সাথে সার্ভিস চার্জ বাবদ ফি এর ১০% হারে ৫৫/- টাকা আবেদনের পরবর্তী ৭২ (বাহাত্তর) ঘণ্টার মধ্যে জমা দেয়া যাবে। উল্লেখ্য যে, অনলাইনে আবেদনপত্র যথাযথভাবে পূরণ করে আবেদন সম্পন্ন করলেও ফি জমা না দেওয়া পর্যন্ত আবেদন গৃহীত হবেনা।

প্রবেশপত্র প্রাপ্তির বিষয়টি এসএমএস এ জানিয়ে দেয়া হবে। এসএমএস এ প্রদত্ত ঠিকানা থেকে বা নৌপরিবহন অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে প্রদত্ত ‘অভ্যন্তরীণ ই-সেবাসমূহ এর নিচে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি লিংকে দেওয়া অনলাইন সফটওয়্যারের ‘প্রবেশপত্র’ মেন্যুতে গিয়ে প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিয়ে প্রবেশপত্র প্রিন্ট করে নিতে হবে। তথ্যসূত্রঃ নৌপরিবহন অধিদপ্তর

সবার আগে নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজ বা ফেসবুক গ্রুপ এ লাইক/ জয়েন দিয়ে রাখুন

Leave a Comment